দুনিয়া এক ধূসর মরীচিকা

৳ 150 ৳ 105

চিরস্থায়ী আবাসকে ধ্বংস করে ক্ষনিকের দুনিয়া নিয়ে ব্যাস্ত বিভোর আমরা। তাই আমাদের চোখে আলো নেই-নেই সুন্দর কোনো আগামীর পয়গাম। এই যে দুনিয়া, যার প্রতি আমাদের এত ভালোবাসা, যে ধন সম্পদ আমরা জমা করছি, আসলে এগুলোর পরিণাম কি?
এগুলোর স্থায়িত্ব?

লেখক

অনুবাদক

আব্দুল্লাহ ইউসুফ

সম্পাদক

মুফতি তারেকুজ্জামান

পৃষ্ঠা

125

প্রকাশনী

ভাষা

চিরস্থায়ী আবাসকে ধ্বংস করে ক্ষনিকের দুনিয়া নিয়ে ব্যাস্ত বিভোর আমরা। তাই আমাদের চোখে আলো নেই-নেই সুন্দর কোনো আগামীর পয়গাম। এই যে দুনিয়া, যার প্রতি আমাদের এত ভালোবাসা, যে ধন সম্পদ আমরা জমা করছি, আসলে এগুলোর পরিণাম কি?
এগুলোর স্থায়িত্ব?

দুনিয়ার ক্ষনস্থায়ি সময়ের সাথে আখিরাতের সময়ের বর্ণনা কোরআন আমাদের জানাচ্ছেঃ

وَ اِنَّ یَوۡمًا عِنۡدَ رَبِّکَ کَاَلۡفِ سَنَۃٍ مِّمَّا تَعُدُّوۡنَ ﴿۴۷﴾
— আর নিশ্চয় আপনার রব-এর কাছে একদিন তোমাদের গণনার হাজার বছরের সমান
(সূরাহ হজ্জ:৪৭)

সহীহ হাদিসে এসেছে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ

وَعَن سَهلِ بنِ سَعدٍ السَّاعِدِي رضي الله عنه، قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللهِ ﷺ:« لَوْ كَانَت الدُّنْيَا تَعْدِلُ عِنْدَ الله جَنَاحَ بَعُوضَةٍ، مَا سَقَى كَافِراً مِنْهَا شَرْبَةَ مَاءٍ ». رواه الترمذي وقال:«حديث حسن صحيح»
সাহল ইবনে সাদ রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, যদি আল্লাহর নিকট মাছির ডানার সমান দুনিয়ার মূল্য বা ওজন থাকত, তাহলে তিনি কোন কাফিরকে দুনিয়া থেকে এক ঢোক পানিও পান করাতেন না।’ [তিরমিযি ২৩২০, ইবন মাজাহ ৪১১০]

দুনিয়ার সরুপ তুলে ধরতে বক্ষমান গ্রন্থটিতে রয়েছে সালাফদের মুক্তো ঝরা বাণীর বর্ষন
আমি তা থেকে আংশিক কিছু উক্তি তুলে ধরার চেষ্টা করছি–

আব্দুল্লাহ বিন আওন (রহ:) বলেনঃ পূর্বসূরিগন আখিরাতের জন্য সময় ব্যায় করার পর হাতে থাকা অবশিষ্ট সময় দুনিয়ার জন্য বরাদ্দ রাখতেন। কিন্তু তোমরা দুনিয়ার জন্য সময় ব্যায় করে অবশিষ্ট সময়টা নির্ধারণ করো আখিরাতের জন্য।

হাসান বসরি (রহ:) বলেন: যার সম্পদ বেশি তার গুনাহ বেশি। যে বেশি কথা বলে সে মিথ্যা বলে বেশি। যার চরিএ খারাপ, সে নিজেই তার শএু।

শাফেয়ি (রহ:) বলেনঃ দুনিয়া ধ্বংসশীল___ এর কোনো স্থায়িত্ব নেই। এটি তো মাকড়সার জাল—- হালকা বাতাসেই অস্তিত্ব হারায়।

ওয়াহাব বিন মুনাব্বিহ রহ. বলেন: দুনিয়া ও আখিরাতের উদাহারণ দু’সতিনের ন্যায়। একজনকে খুশি করতে গেলর অপরজন নিশ্চয় নারাজ হবে।

বইয়ের যে অংশটি পড়লে ঘুমন্ত অনূভুতি জাগ্রত হবার সম্ভাবনা রয়েছে তা আমি উল্লেখ করছি- মানুষ যদি দুনিয়ার সম্পদ অর্জন করে ধনী হয়, তুমি অাল্লাহর নৈকট্য লাভ করে ধনী হও।তারা যদি আনন্দিত হয় দুনিয়াকে নিয়ে, তবে তুমি আনন্দিত হও আল্লাহকে নিয়ে(তাঁর আনুগত্য করে) তারা যদি সম্মান ও মর্যাদা লাভের আশায় দুনিয়ার রাজা বাদশার সাথে পরিচয় হয় তবে তুমি তুমি পরিচয় হও আল্লাহ তাআলার সাথে,তাঁকে ভালোবাসতে শেখো তাহলর তুমিই থাকবে সম্মান ও মর্যাদার উচ্চ আসনে””

আসলে দুনিয়া কেবল দুশ্চিন্তাই বয়ে আনে—– কেড়ে নেয় মানসিক প্রশান্তি। সম্পদবৃদ্ধির সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকে পেরেশানির মাএা। যা ব্যাক্তিগত জীবনে সবাই হাড়েহাড়ে টের পাচ্ছি

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “দুনিয়া এক ধূসর মরীচিকা”

১ম ধাপ: পছন্দের বইটিকে CART এ এড করুন। অর্থাৎ 'এখনই কিনুন' বাটনে ক্লিক করুন
২য় ধাপ: এবার আপনার CART পেজ এ যান। (ওয়েবসাইট এর উপরের ডান কোণায় CART মেনুতে যান এবং VIEW CART এ ক্লিক করুন)
৩য় ধাপ: আপনার কার্ট আইটেমগুলো দেখে নিন এবং সবকিছু ঠিক থাকলে Proceed to Checkout এ চলে যান।
৪র্থ ধাপ: আপনার শিপিং ঠিকানা ও বিবরণ দিন এবং পেমেন্ট সম্পন্ন করুন
৫ম ধাপ: এরপর PLACE ORDER এ ক্লিক করুন।

একাধিক বই কিনতে: যতগুলো বই কিনতে চান সবগুলো CART এ এড করুন, তারপর চেকআউট করুন।

আপনি অর্ডার করার পর, আমরা পেমেন্ট চেক করবো এবং আপনার বই/বইগুলো ডেলিভারি দেয়া হবে। যে কোনও প্রকার হেল্প এর জন্য আমাদের ফোন অথবা মেইল করুন।