ঈমান ভঙ্গের কারণ

৳ 167 ৳ 126

এই বইয়ে এমন দশটি বিষয় ব্যাখ্যা করা হয়েছে, যার কারণে একজন মানুষ ঈমানহারা হয়ে পড়তে পারে। হয়ত সে জানেও না, হয়ত সে একেবারে বেখবর, বুঝতেও পারছে না কখন সে জাহান্নামের পথে হাঁটা ধরেছে। এসব বিষয় জেনে নিয়ে ঈমান রক্ষার শক্ত এক রক্ষাকবচ তৈরি করা তাই প্রতিটি মুসলিমের জন্য অতীব জরুরী। 

লেখক

,

অনুবাদক

মাসউদ আলিমী

সম্পাদক

মুফতি হারুন ইজহার, মুফতি হুমাইদ সাঈদ কাসেমী

প্রকাশনী

পৃষ্ঠা

112

ভাষা

বাংলা

মানুষ বিশ্বাস করে আল্লাহ ছাড়া কোন উপাস্য নেই। কোনো ইলাহ নেই। এবং সে তার ঘোষণাও দেয়। সে মানে একমাত্র আল্লাহ ছাড়া কোনো জিনিস অনিষ্ট, উপকার, দান কিংবা বাধাদানের অধিকার রাখে না। তিনি ছাড়া ইবাদাতের উপযুক্ত কোনো সত্তা নেই। কোনো প্রতিপালক নেই। তথাপি সে তার চলাফেরা, ইবাদতকে স্রেফ আল্লাহর জন্য করতে পারে না। বরং সে ইবাদত করে নিজের জন্য, দুনিয়া কামানোর জন্য—মাখলুকের কাছে সম্মান, মর্যাদা, প্রভাব বৃদ্ধির জন্য। তার ইবাদাতে আল্লাহর জন্য অংশ থাকে, অংশ থাকে তার নিজের জন্যও। নফসের জন্য কিছু অংশ থাকে, থাকে শয়তান ও মাখলুকের জন্যেও। অধিকাংশ মানুষেরই আজ এই অবস্থা।
এই প্রকার শিরকের ব্যাপারে ইবনু হিব্বান (রহঃ) তাঁর সহিহতে উল্লেখ করেছেন, প্রিয় নবী (সাঃ) ইরশাদ করেন,
“সেই সত্তার শপথ যাঁর হাতে আমার প্রাণ! এই উম্মাতের জন্য শিরক পিপীলিকার পদধ্বনির চেয়েও সূক্ষ্ম। সাহাবাগণ আরজ করলেন, ‘ইয়া রাসূলাল্লাহ! এ থেকে বাঁচার উপায় কী?’ তিনি বলেন, ‘তোমরা পাঠ করো,
.
اللَّهُمَّ إِنِّي أَعُوذُ بِكَ أَنْ أُشْرِكَ بِكَ وَأَنَا أَعْلَمُ، وَأَسْتَغْفِرُكَ لِمَا لَا أَعْلَمُ ”
“হে আল্লাহ! আমি সজ্ঞানে তোমার সাথে শিরক করা থেকে তোমার কাছে আশ্রয় চাই এবং যা আমার অজ্ঞাত তা থেকেও তোমার কাছে ক্ষমা চাই।”
.
আল্লাহ বলেন,
قُلْ إِنَّمَآ أَنَا۠ بَشَرٌ مِّثْلُكُمْ يُوحٰىٓ إِلَىَّ أَنَّمَآ إِلٰهُكُمْ إِلٰهٌ وٰحِدٌ ۖ فَمَن كَانَ يَرْجُوا لِقَآءَ رَبِّهِۦ فَلْيَعْمَلْ عَمَلًا صٰلِحًا وَلَا يُشْرِكْ بِعِبَادَةِ رَبِّهِۦٓ أَحَدًۢا
তুমি বলে দাও, ‘আমি তোমাদেরই মতো একজন মানুষ, আমার নিকট এই মর্মে ওহী আসে যে, তোমাদের ইলাহ কেবল এক ইলাহ। কাজেই যে ব্যক্তি তার প্রতিপালকের সঙ্গে সাক্ষাতের আশা করে, সে যেন সৎ ‘আমাল করে আর তার প্রতিপালকের ‘ইবাদাতে কাউকে শরিক না করে।’ (সূরাহ কাহাফ ১৮:১১০)
.
অর্থাৎ আল্লাহ তা’আলা যেমন একমাত্র ইলাহ, তিনি ছাড়া কোনো ইলাহ নেই—অনুরূপভাবে উচিত হলো যেকোনো ইবাদাত একমাত্র তাঁর জন্যই করা। উপাস্য হিসেবে তিনি যেমন একক—ইবাদাতের ক্ষেত্রেও একক হওয়া আবশ্যক। আর সৎকাজ (আমালে সালিহ) তো সেটাই—যেটা রিয়া মুক্ত—সুন্নাহ দ্বারা সজ্জিত।
.
উমার ইবনু খাত্তাব (রাঃ)-এর বিশেষ একটি দু’আ ছিল,
.
اللهم اجعل عملي كله صالحا، واجعله لوجهك خالصا، ولا تجعل لاحد فيه شيئا.
“হে আল্লাহ! আপনি আমার ইবাদতকে সালেহ তথা বিশুদ্ধ করুন। শুধু আপনার সন্তুষ্টির কারণ বানান। এবং তাতে অন্য কারো অংশীদারিত্ব রাখবেন না।”

মণি-মুক্তা, হীরে-জহরত, মূল্যবান সম্পদ, টাকা-পয়সা কত যত্ন করে আমরা আগলে রাখি, নিরাপত্তার কত সব আয়োজন। কিন্তু ঈমানের সুরক্ষায় আমরা কতটুকু সচেতন হই? সেই মূল্যবান ঈমান আছে কি নেই, নষ্ট হয়ে গেলো কি না, শিরক আর কুফরের ফাঁদে পড়ে কলুষিত হয়ে গেলো কি না, কতটুকু খবর রাখি আমরা? অথচ ঈমানহীনতা আমাদের জন্য নিয়ে আসবে ভয়াভহ দুর্ভোগ, জ্বলতে হবে জাহান্নামের লেলিহান শিখায়। এই বইটি ঈমানের সেই অস্তিত্ব পরীক্ষার মানদণ্ড
.
ইমাম মুহাম্মাদ বিন আব্দুল ওয়াহহাব (রহঃ)-এর “ঈমান ভঙ্গের দশটি কারণ” যুগ যুগ ধরে সমাদৃত হয়ে আসছে। অনেক আলেমই এই দশটি বিষয় নিয়ে ব্যাখ্যাগ্রন্থ রচনা করেছেন। আমাদের আলোচ্য বইটিও তেমন একটি ব্যাখ্যাগ্রন্থ। লিখেছেন শাইখ সুলায়মান ইবনু নাসির আল উলওয়ান।
.
এখানে এমন দশটি বিষয় ব্যাখ্যা করা হয়েছে, যার কারণে একজন মানুষ ঈমানহারা হয়ে পড়তে পারে। হয়ত সে জানেও না, হয়ত সে একেবারে বেখবর, বুঝতেও পারছে না কখন সে জাহান্নামের পথে হাঁটা ধরেছে। এসব বিষয় জেনে নিয়ে ঈমান রক্ষার শক্ত এক রক্ষাকবচ তৈরি করা তাই প্রতিটি মুসলিমের জন্য অতীব জরুরী।

 

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “ঈমান ভঙ্গের কারণ”

১ম ধাপ: পছন্দের বইটিকে CART এ এড করুন। অর্থাৎ 'এখনই কিনুন' বাটনে ক্লিক করুন
২য় ধাপ: এবার আপনার CART পেজ এ যান। (ওয়েবসাইট এর উপরের ডান কোণায় CART মেনুতে যান এবং VIEW CART এ ক্লিক করুন)
৩য় ধাপ: আপনার কার্ট আইটেমগুলো দেখে নিন এবং সবকিছু ঠিক থাকলে Proceed to Checkout এ চলে যান।
৪র্থ ধাপ: আপনার শিপিং ঠিকানা ও বিবরণ দিন এবং পেমেন্ট সম্পন্ন করুন
৫ম ধাপ: এরপর PLACE ORDER এ ক্লিক করুন।

একাধিক বই কিনতে: যতগুলো বই কিনতে চান সবগুলো CART এ এড করুন, তারপর চেকআউট করুন।

আপনি অর্ডার করার পর, আমরা পেমেন্ট চেক করবো এবং আপনার বই/বইগুলো ডেলিভারি দেয়া হবে। যে কোনও প্রকার হেল্প এর জন্য আমাদের ফোন অথবা মেইল করুন।