ঈমান সবার আগে

৳ 72

আজ মুসলমানদের ঈমান এত বেশি দুর্বল হয়ে পড়েছে যে খুব সহজেই মূর্খতাবশত ঈমান নিয়ে সংশয়ের সৃষ্টি হচ্ছে, মানুষ আজ এমন কথা বলছে, যে ঈমান হারা হয়ে কাফের হয়ে যাচ্ছে। অথচ, মানুষের জন্য ঈমানের চেয়ে বড় কোনো নেয়ামত নেই। ঈমানবিধ্বংসী পরিবেশে মুসলিম উম্মাহকে ঈমানের বলে বলীয়ান করতে বইটি সকলের পড়া উচিত।

লেখক

প্রকাশনী

দেশ

ভাষা

বাংলা

পৃষ্ঠা

72

আসমান ও জমিনের মধ্যে মহান আল্লাহর মনোনীত একমাত্র দ্বীন হলো ইসলাম। ইসলামের চিরশীতল ছায়ায় প্রবেশ করতে হলে সর্বপ্রথম যে দরজা দিয়ে প্রবেশ করতে হয়, সেই দরজার নাম হচ্ছে ঈমান। ঈমানের অবস্থান সবার আগে, মুমিনদের কাছে ঈমানই সবকিছু থেকে বড়। মুসলমানের কাছে প্রাণের চেয়েও প্রিয়, অমূল্য এক সম্পদ হলো ঈমান। তবে ঈমান শুধু মুখে কালেমা পড়ার নাম নয়, বরং ইসলামকে তার সকল অপরিহার্য অনুষঙ্গসহ মনে-প্রাণে কবুল করার নাম ঈমান। ঈমান ও ইসলামের পূর্ণ পরিচয় কী এবং তার অপরিহার্য দাবি ও অনুষঙ্গগুলো কী, ঈমানের গুরুত্ব ও মুমিনের জীবনে তার প্রাধান্য, কী কী কারণে মনের অজান্তেই আমরা ঈমান প্রতিনিয়ত ঈমানহারা হয়ে যাচ্ছি, মুনাফিক, কাফির-মুশরিক ও মুরতাদ ব্যাপারে ইসলামের বিধিবিধান, দুনিয়া ও আখিরাতে তাদের ভয়ানক পরিণতি এসব বিষয়ে কুরআন-সুন্নাহ ভিত্তিক সংক্ষিপ্ত আলোচনাই বক্ষ্যমাণ গ্রন্থের মূল উদ্দেশ্য। বর্তমান সময়ে যখন ঈমানের মত মহামূল্যবান সম্পদের আলোচনার বিষয়টি অবহেলিত হচ্ছে, দ্বীন ও ঈমান সম্পর্কে অজ্ঞ লোকদের সংখ্যা দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে, ফলে সমাজের অনেকেই সংশয় ও দোদুল্যমানতার রোগে আক্রান্ত হচ্ছে, তখন এমন একটি গ্রন্থের চাহিদা বরাবরই অনুভূত হচ্ছিল। এই চাহিদা পূরণে উদ্যোগী হয়েই আমাদের দেশের আলেম সমাজের উজ্জ্বল নক্ষত্র, প্রখ্যাত হাদীস বিশারদ মাওলানা মুহাম্মাদ আবদুল মালেক (দাঃ বাঃ) মাসিক আল কাউসার পত্রিকার পর পর তিন সংখ্যায় বিষয়টি ধারাবাহিকভাবে উপস্থাপন করেন। যার প্রবন্ধের সংকলিত পরিমার্জিত রূপ হলো বক্ষ্যমাণ গ্রন্থটি। বইটির একটি বিশেষ দিক হলো – বইটির বিষয়বস্তুর আলোকে প্রত্যেক মুসলমানই নিজের ঈমানকে যাচাই করতে পারবেন, পাশাপাশি নিজের আকীদা-বিশ্বাস ও চিন্তা-চেতনার ভুল-ভ্রান্তিকেও পরিশুদ্ধ করে নিতে পারবেন। এছাড়াও অনেক কঠিন ও সংশয়যুক্ত বিষয়ের সহজ-সাবলীল সমাধান ও ব্যাখ্যার কারণে বইটি ব্যাপকভাবে আলেম সমাজ ও পাঠক মহলে সমাদৃত হয়েছে।

سَمِعْنَا وَأَطَعْنَا
‘আমরা শুনলাম ও মান্য করলাম’ (সূরা নূর ২৪/৫১)

মুসলমানের ঈমান হবে সাহাবিদের মত। ঈমানের অন্যতম দাবি হল, শুধু আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের প্রতি আস্থার ভিত্তিতে সকল বিষয়কে সন্দেহাতীতভাবে মেনে নেয়া ও বিশ্বাস করা।

আল্লাহর মুমিনবান্দারা সকল কষ্ট হাসিমুখে সহ্য করতে পারলেও কখনো ঈমান ত্যাগ করতে পারে না। মুমিনের সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদ হল ঈমান। ঈমানের বিপরীত কুফর। ঈমান সত্য, কুফর মিথ্যা। ঈমান আলো, কুফর অন্ধকার। ঈমান জীবন, কুফর মৃত্যু। ঈমান পূর্ণ কল্যাণ, কুফর পূর্ণ অকল্যাণ। ঈমান সরল পথ, আর কুফর ভ্রষ্টতার রাস্তা।

মূল বইয়ের শুরুতে লেখক ঈমান ও কুফরের সংঘাত এবং তাদের মধ্যকার পার্থক্যসমূহ সংক্ষেপে আলোচনা করেছেন। এরপর ঈমান রক্ষার্থে মুসলমানদের কী কী করণীয় সে বিষয়ে দৃষ্টিপাত করেছেন। অতঃপর ঈমান ও ইসলামের পূর্ণ পরিচয় কী এবং তার অপরিহার্য দাবি ও অনুষঙ্গগুলো কী – এ সম্পর্কে সর্বমোট ২২টি প্রবন্ধে আলোকপাত করেছেন। প্রত্যেকটি প্রবন্ধ ও শিরোনামের আলোচনায় অসংখ্য কুরআনের আয়াতের সমাবেশ বইটিকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছে। পাশাপাশি হাদীস ভিত্তিক ও প্রয়োজনে ঐতিহাসিক ঘটনাবলীর আলোচনা বইটিকে আরও বেশি সমৃদ্ধ করেছে। কুরআনের আয়াত ও হাদীস এর উদ্ধৃতিসমূহের রেফারেন্সও সংযুক্ত করা হয়েছে। আর লেখকের সহজ-সাবলীল রচনাভঙ্গি তো নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয়।

বর্তমান সময়ে ঈমানবিধ্বংসী এমন এক ভয়াবহ পরিবেশে আজ আমরা বসবাস করছি – যখন মানুষ সকালে মুমিন থাকে, অথচ বিকালে কাফের হয়ে যায়। আবার বিকালে মুমিন থাকে, সকালে কাফের হয়ে যায়। এমন এক সময়ের ব্যাপারেই নবী করীম (ﷺ) তাঁর উম্মতকে সতর্ক করে গিয়েছেন।

রসূলুল্লাহ (ﷺ) বলেছেন, ‘অন্ধকার রাত্রির ন্যায় ফেতনা আসার আগেই যা আমল করার করে ফেল! মানুষ তখন সকালে মুমিন থাকবে, বিকালে কাফের হয়ে যাবে। বিকালে মুমিন থাকবে, সকালে কাফের হয়ে যাবে। দুনিয়ার তুচ্ছ লাভের আশায় নিজের ঈমানকে সে বিক্রি করে দেবে।’ (সহীহ বুখারী)

বর্তমান সময়ের মুসলমানদের দিকে লক্ষ্য করলে এমনই করুণ অবস্থা পরিলক্ষিত হয়। আজ মুসলমানদের ঈমান এত বেশি দুর্বল হয়ে পড়েছে যে খুব সহজেই মূর্খতাবশত ঈমান নিয়ে সংশয়ের সৃষ্টি হচ্ছে, মানুষ আজ এমন কথা বলছে, যে ঈমান হারা হয়ে কাফের হয়ে যাচ্ছে। অথচ, মানুষের জন্য ঈমানের চেয়ে বড় কোনো নেয়ামত নেই। ঈমানবিধ্বংসী পরিবেশে মুসলিম উম্মাহকে ঈমানের বলে বলীয়ান করতে বইটি সকলের পড়া উচিত।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “ঈমান সবার আগে”

১ম ধাপ: পছন্দের বইটিকে CART এ এড করুন। অর্থাৎ 'এখনই কিনুন' বাটনে ক্লিক করুন
২য় ধাপ: এবার আপনার CART পেজ এ যান। (ওয়েবসাইট এর উপরের ডান কোণায় CART মেনুতে যান এবং VIEW CART এ ক্লিক করুন)
৩য় ধাপ: আপনার কার্ট আইটেমগুলো দেখে নিন এবং সবকিছু ঠিক থাকলে Proceed to Checkout এ চলে যান।
৪র্থ ধাপ: আপনার শিপিং ঠিকানা ও বিবরণ দিন এবং পেমেন্ট সম্পন্ন করুন
৫ম ধাপ: এরপর PLACE ORDER এ ক্লিক করুন।

একাধিক বই কিনতে: যতগুলো বই কিনতে চান সবগুলো CART এ এড করুন, তারপর চেকআউট করুন।

আপনি অর্ডার করার পর, আমরা পেমেন্ট চেক করবো এবং আপনার বই/বইগুলো ডেলিভারি দেয়া হবে। যে কোনও প্রকার হেল্প এর জন্য আমাদের ফোন অথবা মেইল করুন।