নারী সাহাবীদের ঈমানদীপ্ত জীবন

৳ 140 ৳ 70

আটজন বিশিষ্ট নারী সাহাবীর কাহিনী পড়তে পড়তে পাঠক আবিষ্কার করতে থাকবেন নারী জীবনের প্রকৃত সাফল্যের গল্পগাঁথা। এই সাহাবিয়ারা ছিলেন সফলতম নারী। যারা কখনো পড়াশোনা,ক্যারিয়ার,স্ট্যাটাস,টাকা-পয়সা কিংবা দুনিয়ার চাওয়া-পাওয়ায় তাঁদের সাফল্য খুঁজে বেড়াননি। এদের সবার জীবনের সম্বল ছিল আল্লাহ আর তাঁর রাসূলের(সা.) প্রতি ভালোবাসা।

বইটিতে যে মহিয়সী নারীদের জীবন আলোচিত হয়েছে,তাঁরা হলেন-প্রিয় নবীর দুধমা হালীমা, নবীজীর ফুফু ছফিয়্যাহ, প্রিয় নবীর কন্যা ফাতিমাতুয যাহরা, আবু বকর (রা) এর কন্যা আসমা, নাসীবা আল মাযেনীয়া(উম্মে উমারা), আবু সুফিয়ানের কন্যা উম্মে হাবীবা, হযরত গুমাইছা ও উম্মে সালামা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুন্না।

লেখক

অনুবাদক

মাওলানা মাসউদুর রহমান

প্রকাশনী

দেশ

ভাষা

বাংলা

পৃষ্ঠা

82

যখন তত্ত্ব পড়তে ভালো লাগেনা,তখন জীবন পড়ি। কারণ হাজার তত্ত্বের চেয়েও একটি জীবন অনেক দামী-অনেক প্রভাব ফেলে অন্তরে। বইটি যেনতেন কারো জীবন নিয়ে লেখা নয়,এই উম্মাহর শ্রেষ্ঠতম কয়েকজন নারীদের নিয়ে লেখা-নারী সাহাবীদের জীবন নিয়ে লেখা।

বিশিষ্ট সাহিত্যিক ড. আবদুর রহমান রাফাত পাশার ‘সুওয়ারুম মিন হায়াতিস সাহাবিয়্যাত’ গ্রন্থের তরজমা এই সুন্দর প্রচ্ছদের বইটি। খুব সংক্ষিপ্ত কিছু কথা দিয়ে সাজানো এই বইটি পাঠককে বারবার নাড়া দিয়ে যাবে।

আটজন বিশিষ্ট নারী সাহাবীর কাহিনী পড়তে পড়তে পাঠক আবিষ্কার করতে থাকবেন নারী জীবনের প্রকৃত সাফল্যের গল্পগাঁথা। এই সাহাবিয়ারা ছিলেন সফলতম নারী। যারা কখনো পড়াশোনা,ক্যারিয়ার,স্ট্যাটাস,টাকা-পয়সা কিংবা দুনিয়ার চাওয়া-পাওয়ায় তাঁদের সাফল্য খুঁজে বেড়াননি। এদের সবার জীবনের সম্বল ছিল আল্লাহ আর তাঁর রাসূলের(সা.) প্রতি ভালোবাসা। ইসলাম ছাড়া অন্য কোনোকিছুতেই যাঁরা জীবনের শান্তি খোঁজে বেড়াননি। এঁদের কেউ ছিলেন চক্ষুশীতলকারী স্ত্রী, কেউ সন্তান গঠনে নিবেদিত মা, জীবনের প্রতিটি অন্ধকার কাঁটাভরা পথে সবরকারী, কেউ আল্লাহর রাস্তায় জিহাদকারিণী,বুদ্ধিমতী,ব্যাক্তিত্বসম্পন্ন,বিচক্ষণ,আত্মমর্যাদাশীল,অটল-অবিচল ঈমানদার। যুহদ আর তাক্বওয়ায় গড়া জীবন তাঁদের।

বইটিতে যে মহিয়সী নারীদের জীবন আলোচিত হয়েছে,তাঁরা হলেন-প্রিয় নবীর দুধমা হালীমা, নবীজীর ফুফু ছফিয়্যাহ, প্রিয় নবীর কন্যা ফাতিমাতুয যাহরা, আবু বকর (রা) এর কন্যা আসমা, নাসীবা আল মাযেনীয়া(উম্মে উমারা), আবু সুফিয়ানের কন্যা উম্মে হাবীবা, হযরত গুমাইছা ও উম্মে সালামা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুন্না। জন্ম থেকে শুরু করে মৃত্যু পর্যন্ত সব কাহিনী এখানে বর্ণিত হয়নি। বইটিতে শুধু সাহাবিয়াদের জীবনের বিশেষ ঘটনাগুলি স্থান পেয়েছে।

দুধমা হালীমার জীবনীতে নবীজীর শৈশবের,দুধপান সময়ের বিস্ময়কর ও বরকতময় কাহিনীগুলো থেকে জানা যাবে ভবিষ্যৎ ‘শ্রেষ্ঠ নবীর’ পূর্বাভাষ। মমতাময়ী এ মা বার্ধক্যের শেষে এসে খোঁজ পেলেন ইসলামের। আরবজাতির অবিসংবাদিত নেতা,মানবতার নবীর প্রতি ঈমান আনলেন।

ঐতিহাসিকদের মতে,’ছফিয়্যাহই প্রথম মহিলা,যিনি একজন মুশরিককে হত্যা করেছিলেন আল্লাহর দ্বীন বাঁচানোর উদ্দেশ্যে।’ নির্ভীক,বুদ্ধিমতী এই সাহাবিয়া ছিলেন সবদিক দিয়েই মর্যাদাবান। পুত্রকে গড়ে তুলেছিলেন বীর মুজাহিদ রূপে, জিহাদের ময়দানে ভাই হামযার লাশ দেখে আল্লাহর ফয়সালায় তুষ্ট রয়েছিলেন। খন্দকের যুদ্ধে রচেছিলেন রুদ্ধশ্বাস এক বীরত্বগাঁথা।

ফাতিমাতুয যাহরা -নবীজীর স্নেহ ভালোবাসার ফুল,নবী সীরাতের এক আলোকিত অধ্যায়। জান্নাতী নারীদের সর্দার এই নারীর জীবন কেটেছে বিলাসীতা থেকে বহুদূরে ক্ষুদ্র কুটিরে,নিজ হাতে যাঁতায় আটা পিষে। ন্যূনতম আসবাব নিয়ে যিনি তার জীবনটা পার করে দিয়েছেন। তাঁর গর্ভেই জন্ম নেয় জান্নাতী যুবকদের সর্দার-হাসান আর হোসাইন (রা)। নবীজীর ওফাতের পর তিনিই সর্বপ্রথম পৌঁছে যান প্রিয় পিতার কাছে,যাকে বধূর বেশে আলী (রা) এর ঘরে পাঠানো হয় রমজান মাসে। আবার জান্নাতেও পাঠানো হয় রমজান মাসে।

রাসূল (সা) বলেন;’ওহুদ যুদ্ধের সময় ডানে বামে তাকালেই দেখেছি উম্মে উমারা আমাকে নিরাপদ রাখার জন্য লড়াই করে যাচ্ছে।’ ইনি সেই উম্মে উমারা যিনি চেয়েছিলেন যেন তার পরিবার জান্নাতে রাসূলের সঙ্গী হতে পারে। রাসূল (সা) দুয়া করলে, তিনি বলে উঠেন, ‘এরপরে আমি আর কোনো কিছুরই পরোয়া করিনা,দুনিয়াতে আমার যা হয় হোক। আমার কিছু আসে যায় না।’ তিনি সত্যিই আর পরোয়া করেননি। ইয়ামামার যুদ্ধে তিনি হারান তাঁর এক পুত্র,একটি হাত। প্রতিদান প্রত্যাশা করেন শুধু আল্লাহর কাছে।

গুমাইছা বিনতে মিলহানকে নিয়ে মদিনাবাসীর মন্তব্য: ‘আমরা কখনো কোনো নারীর কথা শুনিনি,যার মোহর উম্মে সুলাইমের চেয়ে অধিক মর্যাদাপূর্ণ।কেননা তার মোহর ছিলো ইসলাম’। তার সম্পর্কে অধিক ভাগ্যবতী আর কে হতে পারে,যাঁর সম্পর্কে রাসূল (সা) বলেছেন: ‘আমি জান্নাতে প্রবেশ করে সেখানে পায়ের আওয়াজ শুনতে পেলাম…আমি জিজ্ঞাসা করলাম-কার পায়ের আওয়াজ? কে এখানে? ফেরেশতারা বললেন-আনাস ইবনে মালিকের মা গুমাইছা বিনতে মিলহান…’।

আল্লাহ তা’লা সাহাবিয়াগণের চেহারা উজ্জ্বল করে দিন সেই আকাঙ্ক্ষিত জান্নাতে। আমাদেরকে তাদের পদাঙ্ক অনুসরণ করার তাওফীক্ব দিন। রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুন্না।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “নারী সাহাবীদের ঈমানদীপ্ত জীবন”

১ম ধাপ: পছন্দের বইটিকে CART এ এড করুন। অর্থাৎ 'এখনই কিনুন' বাটনে ক্লিক করুন
২য় ধাপ: এবার আপনার CART পেজ এ যান। (ওয়েবসাইট এর উপরের ডান কোণায় CART মেনুতে যান এবং VIEW CART এ ক্লিক করুন)
৩য় ধাপ: আপনার কার্ট আইটেমগুলো দেখে নিন এবং সবকিছু ঠিক থাকলে Proceed to Checkout এ চলে যান।
৪র্থ ধাপ: আপনার শিপিং ঠিকানা ও বিবরণ দিন এবং পেমেন্ট সম্পন্ন করুন
৫ম ধাপ: এরপর PLACE ORDER এ ক্লিক করুন।

একাধিক বই কিনতে: যতগুলো বই কিনতে চান সবগুলো CART এ এড করুন, তারপর চেকআউট করুন।

আপনি অর্ডার করার পর, আমরা পেমেন্ট চেক করবো এবং আপনার বই/বইগুলো ডেলিভারি দেয়া হবে। যে কোনও প্রকার হেল্প এর জন্য আমাদের ফোন অথবা মেইল করুন।