প্রাচ্যবিদদের ইসলামচর্চার নেপথ্যে

৳ 120 ৳ 66

প্রাচ্যবিদদের মরণফাঁদ থেকে মুসলিম উম্মাহকে রক্ষা করতে প্রাচ্যবিদদের ভ্রান্তিকে ওপেন চ্যালেঞ্জ করে বাংলা ভাষায় এমন একটি বই আরও অনেক আগেই জরুরি ছিল। সেই শূন্যতার পূরনের পথে এবার নতুন করে যাত্রা শুরু হয়েছে। ওরিয়েন্টালিস্টদের সর্বনাশা গ্রাস থেকে জাতিকে সচেতন করতে, ঘুম থেকে জাগ্রত করতে বইটির বহুল প্রচার কাম্য। সত্যসন্ধানী, বাতিলের বিরুদ্ধে সোচ্চার প্রত্যেক ইসলামপ্রেমীদের জন্য বইটি অবশ্য পাঠ্য। মাত্র ৯৬ পৃষ্ঠার বইয়ে লেখক যেভাবে ওরিয়েন্টালিস্টদের শতাব্দীর পর শতাব্দীর চক্রান্ত ও নীল-নকশা ভেদ করেছেন ইসলামি গবেষণায় তার উদাহরণ বিরল। তথ্যবহুল, মুখোশভেদকারী এই বইটি সকলকে পড়ার অনুরোধ রইলো।

লেখক

অনুবাদক

আবদুল্লাহ আল ফারুক

প্রকাশনী

পৃষ্ঠা

96

ভাষা

বাংলা

কুফফারদের সাথে মুসলমানদের বুদ্ধিবৃত্তিক লড়াই বহুকাল ধরে চলমান। যেখানে আমরা মুসলিমরা ঘুমিয়ে পড়েছি, সেখানে ইয়াহুদি-নাসারারা সদা জাগ্রত। তাদের গোপন সভা, আলোচনা সমাবেশে তারা অনবরত মুসলিম জাতিকে বুদ্ধিবৃত্তিকভাবে বিপর্যস্ত করার নীল নকশা তৈরি করছে। কুফফার গোষ্ঠীর নীল নকশা ভেদ করে তাদের চক্রান্তকে পাঠকের সামনে তুলে ধরেছেন – সিরিয়ার প্রখ্যাত ঐতিহাসিক ড. মুসতফা আস-সিবাঈ। পৃথিবীর ইতিহাসে যে সকল সংগ্রামী মহাবীরদের নাম উজ্জ্বল, সপ্রতিভ তাঁদের মধ্যে তিনি অন্যতম। সমগ্র জীবনই সাম্রাজ্যবাদী দেশগুলোর কালো থাবার বিরুদ্ধে তৎপর ছিলেন এই মহান মনীষী। বর্ণাঢ্য কর্মজীবনে তিনি অনেকগুলো ইসলামি পত্রিকা সম্পাদনা করেছেন, রচনা করেছেন বিশ্বনন্দিত অনেকগুলো গ্রন্থ।
.
বক্ষ্যমাণ বইটির মূল প্রতিপাদ্য বিষয় হলো পাশ্চাত্য ওরিয়েন্টালিস্টদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে ইসলাম চর্চা তথা আরবদের ইতিহাস, সভ্যতা ও সংস্কৃতি চর্চার নেপথ্যের কারণসমূহ। মূল বইয়ের শুরুতে প্রাচ্যবিদ ও প্রাচ্যতত্ত্ব বিষয়ে আলোচনা করতে গিয়ে লেখক ইসলাম চর্চার আড়ালে ওরিয়েন্টালিস্টদের ইতিহাস বিকৃতি, অনৈতিকতা ও ভুল ব্যাখ্যার মাধ্যমে ইসলামকে সারা দুনিয়ার মানুষের কাছে অবমাননা করার অপচেষ্টার দাস্তান তুলে ধরেছেন। তাদের মারাত্মক ষড়যন্ত্রে মুসলিম জাতি নিজস্ব মূল্যবোধ ও ঐতিহ্য থেকে ধীরে ধীরে দূরে সরে গিয়ে কীভাবে পাশ্চাত্যের অন্ধ অনুকরণ করছে ফুটে উঠেছে সে কথাও। এরপর প্রাচ্যতত্ত্বের ইতিহাস ও তাদের কর্মক্ষেত্রের সংক্ষিপ্ত আলোচনার পর তাদের বিষাক্ত ছোবলের মূল লক্ষ্যের প্রতি লেখক দৃষ্টিপাত করেছেন।
.
প্রাচ্যতত্ত্ব উদ্ভবের নীল-নকশা যারা এঁকেছিল, তাদের মূল উদ্দেশ্যই ছিল ইসলামকে পৃথিবীর বুক থেকে চিরতরে মুছে দেওয়া। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন করতে তারা মুসলিমদের ধর্মীয় মূল্যবোধ, বাণিজ্যিক মনোবৃত্তি, রাজনৈতিক দূরভিসন্ধি, বুদ্ধিবৃত্তিক ও গবেষণাক্ষেত্র সমূহে হস্তক্ষেপ শুরু করলো। আর মুসলিমদের সর্বস্তরে ছড়িয়ে দিল জাতীয়তাবাদ আর সাম্রাজ্যবাদের বিষ। এরপর বইটিতে ওরিয়েন্টালিস্টরা কেন প্রাচ্য নিয়ে চর্চা শুরু করলো, প্রাচ্যতত্ত্বের দূরভিসন্ধি বাস্তবায়ন করতে তারা যেসব উপায় উপকরণ ব্যবহার করছে সে বিষয়ে আলোকপাত করা হয়েছে। অতঃপর প্রাচ্যবিদরা ইহুদী-খ্রিষ্টানদের এজেন্ডার প্রচার-প্রসারে যেসব প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে তার মুখোশ উন্মোচন করা হয়েছে। ইসলামিক এনসাইক্লোপিডিয়াসহ আরও অন্যান্য গবেষণাধর্মী কর্মকাণ্ডে ওরিয়েন্টালিস্টরা কীভাবে বিষমিশ্রিত তথ্য প্রবিষ্ট করছে সেই বর্ণনাও পরবর্তীতে এসেছে। এরপর প্রাচ্যবিদ মহল কর্তৃক প্রকাশিত কিছু ইসলাম বিদ্বেষী পত্রিকা, প্রাচ্যবিদদের ইসলামি বিদ্বেষী ব্যক্তিত্ব ও তাদের নীতিবর্জিত বই, প্রাচ্যবিদদের এমন কিছু রচনা যেগুলো বিষমিশ্রিত হলেও বহুল সমাদৃত প্রভৃতি বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে।
.
অতঃপর প্রাচ্যবিদদের গবেষণা ও নিরীক্ষণের মাপকাঠির অসততা, ধর্মীয় গোঁড়ামি, চক্রান্ত ও স্বার্থসিদ্ধির গবেষণার প্রয়াস লেখক বিস্তারিত রেফারেন্স এবং যুক্তিতর্কের আলোকে বিজ্ঞমহলের সামনে তুলে ধরেছেন। মুখোশধারী চেহারাগুলো পরিস্কার হয়ে গিয়েছে জনসাধারণের সামনে। যারা আগে কেবলমাত্র প্রাচ্যবিদ বলতেই অজ্ঞান ছিলেন, তাদেরও চোখ খুলে যাবে লেখকের বুদ্ধিবৃত্তিক ও অনুসন্ধিৎসু বর্ণনার মাধ্যমে। এছাড়াও লেখক নিজের জীবনের বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে পশ্চিমা প্রাচ্যবিদদের মুখোমুখি হওয়ার বিভিন্ন ঘটনা পেশ করেছেন। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই প্রাচ্যবিদদের ইসলাম বিদ্বেষী মনোভাব, ইসলামকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য খোঁড়া যুক্তির আশ্রয় নেয়া আর প্রাচ্যতত্ত্ব চর্চা ও গবেষণার মিথ্যাচার প্রাচ্যবিদদের বিকৃত মন মানসিকতারই সাক্ষী হয়ে দাঁড়ায়।
.
শিক্ষা ও গবেষণার নামে তাদের মূল মিশনই ছিল – “ইসলামের শুভ্র বদনে কালিমা লেপন করার জন্যে সব ধরণের বিকার-বিকৃতির আশ্রয় নেওয়া।”
.
সর্বশেষ নিবেদনে লেখক ব্যক্ত করেছেন এমন এক আশার বাণী, যে অদূর ভবিষ্যতে ইসলামের সাহসী সন্তানেরা আবারো মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে শিখবে, পশ্চিমাদের কালো থাবা থেকে বেরিয়ে এসে তাদের ষড়যন্ত্রের ফাটল ধরাবে, গৌরবের সাথে পৃথিবীর বুকে ইসলামের শাশ্বত বাণী মাথা তুলে দাঁড়াবে আরও একবার!
.
প্রাচ্যবিদদের মরণফাঁদ থেকে মুসলিম উম্মাহকে রক্ষা করতে প্রাচ্যবিদদের ভ্রান্তিকে ওপেন চ্যালেঞ্জ করে বাংলা ভাষায় এমন একটি বই আরও অনেক আগেই জরুরি ছিল। সেই শূন্যতার পূরনের পথে এবার নতুন করে যাত্রা শুরু হয়েছে। ওরিয়েন্টালিস্টদের সর্বনাশা গ্রাস থেকে জাতিকে সচেতন করতে, ঘুম থেকে জাগ্রত করতে বইটির বহুল প্রচার কাম্য। সত্যসন্ধানী, বাতিলের বিরুদ্ধে সোচ্চার প্রত্যেক ইসলামপ্রেমীদের জন্য বইটি অবশ্য পাঠ্য। মাত্র ৯৬ পৃষ্ঠার বইয়ে লেখক যেভাবে ওরিয়েন্টালিস্টদের শতাব্দীর পর শতাব্দীর চক্রান্ত ও নীল-নকশা ভেদ করেছেন ইসলামি গবেষণায় তার উদাহরণ বিরল। তথ্যবহুল, মুখোশভেদকারী এই বইটি সকলকে পড়ার অনুরোধ রইলো।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “প্রাচ্যবিদদের ইসলামচর্চার নেপথ্যে”

১ম ধাপ: পছন্দের বইটিকে CART এ এড করুন। অর্থাৎ 'এখনই কিনুন' বাটনে ক্লিক করুন
২য় ধাপ: এবার আপনার CART পেজ এ যান। (ওয়েবসাইট এর উপরের ডান কোণায় CART মেনুতে যান এবং VIEW CART এ ক্লিক করুন)
৩য় ধাপ: আপনার কার্ট আইটেমগুলো দেখে নিন এবং সবকিছু ঠিক থাকলে Proceed to Checkout এ চলে যান।
৪র্থ ধাপ: আপনার শিপিং ঠিকানা ও বিবরণ দিন এবং পেমেন্ট সম্পন্ন করুন
৫ম ধাপ: এরপর PLACE ORDER এ ক্লিক করুন।

একাধিক বই কিনতে: যতগুলো বই কিনতে চান সবগুলো CART এ এড করুন, তারপর চেকআউট করুন।

আপনি অর্ডার করার পর, আমরা পেমেন্ট চেক করবো এবং আপনার বই/বইগুলো ডেলিভারি দেয়া হবে। যে কোনও প্রকার হেল্প এর জন্য আমাদের ফোন অথবা মেইল করুন।